সূরা ফাতিহা বাংলা উচ্চারণ । সূরা ফাতিহা বাংলা অর্থ

প্রিয় পাঠক পবিত্র কুরআন শরীফে প্রথম সূরা হচ্ছে সূরা ফাতিহা। প্রতি ওয়াক্ত নামাজে সূরা ফাতিহা তেলাওয়াত করা ওয়াজিব। তাই আমাদের সকলের সূরা ফাতিহা বাংলা উচ্চারণ , সূরা ফাতিহা বাংলা অর্থ , সূরা ফাতিহার ফজিলত ইত্যাদি সম্পর্কে জানা উচিত।
সূরা ফাতিহা বাংলা উচ্চারণ । সূরা ফাতিহা বাংলা অর্থ
তাই আজকে আমরা আপনাদের সামনে সূরা ফাতিহার শানে নুযুল , সূরা ফাতিহা বাংলা উচ্চারণ , সূরা ফাতিহা বাংলা উচ্চারণ ছবি , সূরা ফাতিহা বাংলা অর্থ , সূরা ফাতিহার ফজিলত ইত্যাদি সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করব। আশা করব শেষ পর্যন্ত মনোযোগ সহকারে আমাদের পোস্টটি পড়বেন।

সূরা ফাতিহা বাংলা উচ্চারণ । সূরা ফাতিহা বাংলা অর্থ । সূরা ফাতিহার ফজিলত

কোন কিছুর ভূমিকা বা সূচনাকে আরবিতে বলা হয় ফাতিহা। পবিত্র কুরআনে সর্বপ্রথম এই সূরাটি নাযিল হয়েছে বলে একে সুরাতুল ফাতিহা বলা হয় । এই সূরার অপর নাম উম্মুল কিতাব বা কিতাবের জননী । তিরমিজি শরীফের একটি হাদীসে পাওয়া যায় প্রিয় নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন এই সূরাটি হলো উম্মুল কুরআন, উম্মুল কিতাব, সুরাতুল হামদ এবং সুরাতুস সালাত ।

সূরা ফাতিহার শানে নুযুল এবং নামকরণ

সূরা ফাতিহা প্রিয় নবী (সা.) এর মাক্কী জীবনের একেবারে প্রথম দিকে নাযিল হয়। পবিত্র কুরআনের প্রথম পূর্ণাঙ্গ নাযিলকৃত সূরা হচ্ছে সূরা ফাতিহা। মহান আল্লাহতালা সূরা ফাতিহাকে পবিত্র কুরআনের ভূমিকা হিসেবে নাযিল করেছেন যার জন্য এই সূরার নামকরণ করা হয়েছে ফাতিহা। 

পবিত্র কুরআনের ১১৪ টি সূরার মধ্যে ১১২ টির নামকরণ করা হয়েছে ওই সূরার অন্তর্গত কোন শব্দ দিয়ে । কিন্তু দুইটি সূরা, সূরা ফাতিহা এবং সূরা ইখলাস এর নামকরণ করা হয়েছে ভাবার্থ এবং প্রয়োগের দিক থেকে। 
সূরা ইখলাস এ মহান আল্লাহতালার একত্ববাদের ঘোষণা করা হয়েছে যার ভাবার্থ থেকে ওই সূরার নামকরণ করা হয়েছে ইখলাস। অন্যদিকে সূরা ফাতিহা দিয়ে পবিত্র কোরআন শুরু করা হয়েছে আবার সূরা ফাতিহা দিয়ে মুসলমানেরা দিনে পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ শুরু করে থাকেন তাই এই সূরার নামকরণ করা হয়েছে প্রয়োগের দিক থেকে । 

ফাতিহা অর্থ ভূমিকা বা প্রারম্ভিকা। সূরা ফাতিহার আরেক নাম উম্মুল কিতাব সহি বুখারিতে বর্ণনা আছে এই সূরাটির নাম উম্মুল কিতাব রাখার কারণ এই যে কুরআন মাজিদের লিখন এর সূরা হতে আরম্ভ হয়ে থাকে এবং সালাতের কিরাতও এ থেকেই শুরু হয়। এ সূরার অন্যান্য নামগুলো হলঃ
  1. উম্মুল কিতাব
  2. উম্মুল কুরআন
  3. সুরাতুশ শিফা
  4. সুরাতুল হামদ
  5. সূরাতুল রুকিয়াহ এবং
  6. সুরাতুস সালাত
সূরা ফাতিহার মোট আয়াত সংখ্যা ০৭ টি শব্দ ২৫ টি এবং অক্ষর ১১৩ টি।

সূরা ফাতিহা বাংলা উচ্চারণ

বিসমিল্লাহির রহমানির রহীম
আল হাম্দু লিল্লা-হি রাব্বিল্ আ-লামীন। আর্ রহমা-নির রহী-ম। মা-লিকি ইয়াওমিদ্দী-ন। ইয়্যাকা না'বুদু ওয়া ইয়্যাকা নাসতাঈন । ইহদিনাস সিরা-ত্বল মুস্তাক্বী-ম্। সিরা-ত্বল্লাযীনা আন্‘আমতা ‘আলাইহিম। গইরিল মাগদূ-বি আলাইহিম ওয়ালাদ্দ্ব--ল্লীন। আমীন ।

সূরা ফাতিহা বাংলা উচ্চারণ ছবি

সূরা ফাতিহা বাংলা উচ্চারণ

সূরা ফাতিহা বাংলা অর্থ

পরম করুনাময় আল্লাহর নামে শুরু করছি
সকল প্রশংসা সে আল্লাহ তা'আলার জন্য যিনি নিখিল বিশ্বের প্রতিপালক। তিনি পরম দয়ালু ও অতিশয় মেহেরবান। তিনিই বিচার দিবসের মালিক। হে আল্লাহ! আমরা একমাত্র আপনারই ইবাদত করি এবং আপনারই নিকট সকল প্রকার সাহায্য কামনা করি । হে আল্লাহ! আপনি আমাদেরকে সরল সঠিক পথ দেখান। সে সমস্ত লোকদের পথে যাদেরকে আপনি অনুগ্রহ করেছেন। কিন্তু তাদের পথে নয় যারা আপনার ক্রোধভাজন এবং যারা পথভ্রষ্ট হয়েছে । (আপনি কবুল করুন)।

সূরা ফাতিহার ফজিলত

সূরা ফাতিহা কুরআন মাজীদের সমস্ত সূরার সর্বাপেক্ষা মর্যাদাশীল। হুযূর (সা.)-এর দরবারে যখনই কোনো বিপদগ্রস্ত বা রোগাক্রান্ত ব্যক্তি আগমন করতেন, তখন তিনি তাদেরকে সূরা ফাতিহা বেশি করে পড়তে আদেশ করতেন। তারা এ সূরা পাঠ করে বিপদ হতে মুক্তি ও রোগ হতে আরোগ্য লাভ করতেন ।

হুযূর (সা.) বলেছেন, ফজরের সুন্নত ও ফরজের মধ্যবর্তী সময়ে বিসমিল্লাহসহ চল্লিশবার সূরা ফাতিহা পাঠ করে কোনো রোগিকে ফুঁক দিলে এ সূরার মর্যাদা ও বরকতে সত্বর ঐ ব্যক্তি আরোগ্য লাভ করবে। ৪১ বার এই সূরা পড়ে পানিতে ফুঁক দিয়ে সেই পানি জ্বরের রোগির মুখমণ্ডলে ছিটিয়ে দিলে এবং পান করালে কঠিন জ্বর হতে আরোগ্য লাভ করবে।
ফজরের সুন্নত ও ফরজের মধ্যবর্তী সময়ে নিয়মিত এই সূরা পাঠ করলে তার রুজি-রোজগারে বরকত হয়। প্রতিদিন নামাজান্তে এ সূরাটি একশত বার করে মোট পাঁচ ওয়াক্তে পাঁচশত বার পাঠ করে আল্লাহর দরবারে হাত তুলে যে কোনো দোয়া করলে তিনি তা কবুল করবেন।

প্রতিদিন এ সূরা তিনশত বার পাঠ করলে আল্লাহ তা'আলা তার সকল নেক উদ্দেশ্য পূর্ণ করবেন প্রতিদিন শেষ রাত্রে একান্নবার এ সূরা পাঠ করলে পাঠকারীর সংসার দিন দিন উন্নতি হবে আর যাবতীয় কঠিন কাজ তার জন্য সহজসাধ্য হয়ে যাবে। এ সূরাটি লেখে ঘরের দরজার সামনে ঝুলিয়ে রাখলে ঐ গৃহটি যে কোনো মসিবত থেকে রক্ষা পাবে।
প্রতিদিন এ সূরাটি ফজরের ওয়াক্তে সুন্নত ও ফরজ নামাজের মধ্যবর্তী সময় একচল্লিশ বার পাঠ করলে তার জীবন সুখী ও মান-সম্মান বৃদ্ধি পাবে। বিমিল্লাসহ এ সূরা পাঠ করে প্রতিবারে এক গ্লাস পানিতে ফুঁক দিয়ে ঐ পানি আমাশার রোগিকে পান করালে খোদার মেহেরবানীতে অতিসত্বর রুগি আরোগ্য লাভ করবে। এভাবে কলেরা রুগিকে খাওয়ালেও রুগি ভাল হয়ে যাবে।

সূরা ফাতিহা বাংলা উচ্চারণ । সূরা ফাতিহা বাংলা অর্থ । সূরা ফাতিহার ফজিলত : লেখক এর মতামত

প্রিয় পাঠক আজকে আমরা সূরা ফাতিহার শানে নুযুল , সূরা ফাতিহা বাংলা উচ্চারণ , সূরা ফাতিহা বাংলা উচ্চারণ ছবি , সূরা ফাতিহা বাংলা অর্থ , সূরা ফাতিহার ফজিলত ইত্যাদি সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করলাম।

এ সংক্রান্ত আপনাদের যেকোনো মতামত বা প্রশ্ন থাকলে আমাদের কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করে জানাতে পারেন। এরকম প্রয়োজনীয় আরও তথ্য পেতে নিয়মিত আমাদের ওয়েবসাইটটি ভিজিট করুন এবং গুগল নিউজে আমাদের পেজটিতে ফলো দিয়ে রাখুন। ধন্যবাদ।।
Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url

ইসলামিক ইনফো বাংলা